আজ সোমবার, ০১ Jun ২০২০, ১০:৩৬ পূর্বাহ্ন
Smiley face

যশোরের শার্শায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ

সেলিম আহম্মেদ,যশোর প্রতিনিধিঃ
যশোরের শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়ায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ১৮ বছরের এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার সকালে ভিকটিম বাদী হয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছিল।সেটি শার্শা থানার পুলিশ তদন্তে পর ১৯/১২/২০১৯ইং তারিখে মামলা রেকর্ড করা হয়েছে মামলা নাম্বার ১৩ তারিখ ১৯/১২/২০১৯ ।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার বাগআঁচড়া সামটা গ্রামের শাহাজান কবিরের বকাটে ছেলে মোনায়েম হোসেন মুন্না একই গ্রামের কলেজ পড়ুয়া তাহেরা খাতুন হীরাকে বিগত কয়েক দুই বছর ধরে তাদের প্রেমের সম্পর্ক থাকা অবস্থায় গত ২০/১১/২০১৯ইং তারিখে দেশে আসে মুন্না এসে
দেখা করতে চলে আসে মেয়ের সাথে করতে এসে
মুন্না তাহেরাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাকে ধর্ষন করে তার পর থেকে প্রতিদিন প্রায় এক মাস যাবত শারীরিক মেলামেশায় লিপ্ত হয় । এদিকে এক মাস তার সাথে দৈহিক মেলামেশার পর তাহেরা মুন্নাকে বিয়ে করার জন্য চাঁপ প্রয়োগ করেন । কিন্তু তখন তাকে বিয়ে করতে অস্বীকার করেন ওই লম্পট মুন্না। পরে উপায়অন্ত না পেয়ে বাদী তাহেরা খাতুন শার্শা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এব্যাপারে তাহেরার মা কান্না জড়িত কন্ঠে আকুতি করে বলেন, আমার মেয়ের সরলতার সুযোগ নিয়ে মুন্না আমার মেয়েকে একাধীকবার ধর্ষণ করেছে। এখন বিয়ে করতে চায়না তাই আমরা থানায় মামলা করেছি। যার মামলা নাম্বার ১৩ /১৯-১২-২০১৯ ইং ।

২০ নভেম্বর মালেশিয়া থেকে দেশে এসেছে বিদেশ থাকা অবস্থায় দুই বছর সম্পর্ক ছিলো ২৩ তারিখ থেকে তাকে লাগাতার ধর্ষণ করে এই লম্পট

১৮-১২-২০১৯ইং তারিখে তাহেরা খাতুন হিরা ছেলে মুন্নার বাড়িতে এসে হাজির হয় । সারা রাত্রি মুন্নার বাড়িতে যাপন করেন । ১৯-১২-২০১৯ তারিখে সকাল আনুমানিক ১১ টার দিকে পুলিশ তাহেরা খাতুন হিরা কে ঐ মুন্নার বাসা থেকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ সজ্জা হাসপাতালে নিয়ে ডিএন এ টেস্ট করা হয়েছে ।

এ ব্যাপারে শার্শা থানার (ওসি)আতাউর রহমান বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে । দুরত্ব আসামি কে ধরার ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
error: Content is protected !!