আজ বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০২০, ০৪:৪৫ পূর্বাহ্ন
Smiley face

দুই সদস্য সংক্রমিত! তাতেও থেমে নেই বাংলাদেশ ডেন্টাল পরিষদ সদস্যের চিকিৎসা সেবা প্রদান।

এম কে রব্বানী,বিশেষ প্রতিনিধি:

নভেল করোনাভাইরাস চীনের উহানে প্রথমে শনাক্ত হওয়া এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের প্রায় সব দেশ ও অঞ্চলে। এতে প্রতিনিয়ত মৃতের সংখ্যা বাড়ছে, বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যাও। বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে যাওয়া মারাত্মক সংক্রামক মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বিশ্ব এখন শঙ্কিত, স্তম্ভিত ও দিশেহারা। যার ফলে বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশও এক দুর্বিষহ ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে।
এই সংকটকালীন সময়ে সারা দেশে
যখন দাঁতের চিকিৎসা সেবা পাওয়া ব্যহত হচ্ছে, সেই সময়ে এক ব্যতিক্রমধর্মী উদহারণ নিয়ে অত্যন্ত নিষ্ঠা ও দ্বায়িত্বশীল ভাবে বিভিন্ন সরকারী -বেসরকারী স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠানে নিয়মিত দাঁতের রোগী দেখছেন ডেন্টাল টেকনোলজিষ্টগণ।

এছাড়াও বিভিন্ন এলাকায় ব্যাক্তি উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত ডেন্টাল কেয়ার সমূহে ডেন্টাল টেকনোলজিষ্টগণ সম্পূর্ণ নিজ খরচে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধী ব্যক্তিগত নিরাপত্তা সামগ্রী (পিপিই) ও যথাযথ জীবাণু মুক্তকরণ প্রক্রিয়া নিশ্চিত করণ সাপেক্ষে সারা দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে দাঁতের জরুরী চিকিৎসা সেবা অব্যাহত রেখেছে।
এ বিষয়ে ডেন্টাল টেকনোলজিষ্টদের একমাত্র প্রতিনিধিত্বকারী জাতীয় সংগঠন বাংলাদেশ ডেন্টাল পরিষদ (বিডিপি) এর মহাসচিব লায়ন মুহাম্মদ কামাল হোসেন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয় কর্তৃক অনুমোদিত এবং বাংলাদেশ রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদ কর্তৃক অধিভূক্ত ও নিবন্ধিত ৩/৪ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন ডেন্টাল টেকনোলজিষ্ট কোর্সে যাহারা
এস,এস,সি /এইচ,এস,সি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগে কৃত্বিতের সহিত উত্তীর্ণ হয়েছে এমন অনেক মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীরা প্রতি বছর দেশের সরকারী ৯টি প্রতিষ্ঠানে ৪৪৫জন এবং বেসরকারী ১০৩টি প্রতিষ্ঠানে পড়াশুনা করে আসছেন। বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় ১০ (দশ) হাজার অত্যন্ত সুদক্ষ ও সুপ্রশিক্ষিত ডিপ্লোমা ডেন্টাল টেকনোলজিষ্ট/ ডিপ্লোমা ডেন্টিস্ট বাংলাদেশে রয়েছেন। যাহারা বাস্তবমূখী ও যুগোপযোগী কোর্স-কারিকুলাম ভিত্তিক শিক্ষা গ্রহণ করে স্বাধীনতার পূর্ব হতে অদ্যাবধি সারা বাংলাদেশের বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী হাসপাতাল সহ প্রত্যন্ত অঞ্চলে ব্যাক্তি উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত ডেন্টাল ক্লিনিক সমূহে অত্যন্ত সুনাম ও দক্ষতার সহিত নানা শ্রেনী পেশার মানুষের মুখ ও দন্তরোগের চিকিৎসা সেবা প্রদান করে অাসছে। ১৯৭৫সাল থেকে সুন্দর ও সুশৃঙ্গলতার সাথে পরিচালিত হওয়া এই সংগঠনের সারা বাংলাদেশের সদস্যরা প্রতিটি জাতীয় দূর্যোগে দূর্গতদের পাশে দাঁড়িয়ে থাকে।তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ ডেন্টাল পরিষদের সদস্য নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত শরীফুল ইসলাম ও কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত সঞ্চয় কুমার সূত্রধর করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার পরেও ডেন্টাল টেকনোলজিষ্টগণ দেশের এই দুঃসময়ে সেবার ব্রত হয়ে অাপামর জনসাধারণের মুখ ও দাঁতের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করনে জরুরী নয় এমন পর্যায়ে মোবাইলে ডেন্টাল চিকিৎসা সেবা ও জরুরী রোগীদের ডেন্টাল চেম্বারে দাঁতের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। বাংলাদেশ ডেন্টাল পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃ মোশাররফ হোসেন মোল্লা বলেন – ডেন্টাল টেকনোলজিষ্টগণ করোনা পরিস্থিতিতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেবা দিচ্ছেন , এই ভাইরাস যা মানুষের ফুসফুসের মারাত্মক রোগ সৃষ্টি করে , যা পূর্বে বিজ্ঞানীদের অজানা ছিল- চীন থেকে এখন ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশে। রোগটিকে এখন বিশ্ব মহামারি ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তিনি বলেন আমাদের হাজার হাজার ভাই বোন বেকার, এই মহামারিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কে নিয়োগের মাধ্যমে কাজে লাগানো দাবী করেন, বাংলাদেশ ডেন্টাল পরিষদ এর সদস্যদের নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে এই মহামারিতে অসহায় ও দরিদ্র মানুষের পাশে থাকার । সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রহমান তুষার সাহেবের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন যে কোন বয়সের মানুষই এই ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারে, একটি বিষয় লক্ষ্যণীয় যে সম্প্রতি উপজেলা লেভেলে আমাদের ডেন্টাল টেকনোলজিষ্টদের নমুনা কালেকশন করার জন্য পাঠানো হচ্ছে যাহা আমাদের নজরে এসেছে এবং হতাশ করেছে। তিনি কিশোরগঞ্জ ও নরসিংদী জেলার সিভিল সার্জনের প্রতি আহবান জানান নমুনা কালেকশন ও পরীক্ষা করা ল্যাব টেকনোলজিষ্টদের কাজ তাই তাদের দিয়েই করানো হোক।

হিসাব করে দেখা যায় বর্তমানে দেশে প্রায় নয় হাজার দক্ষ বেকার ডিপ্লোমা ডেন্টাল টেকনোলজিষ্ট আছে, সরকার যদি এদের দ্রুত নিয়োগের মাধ্যমে কাজে লাগাতে পারে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীসহ দেশ ও জাতি উপকৃত হবে।

Print Friendly, PDF & Email
error: Content is protected !!