আজ শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ০৪:৩০ অপরাহ্ন
Smiley face

খুলনার দাকোপের বানিশন্তার ব্রোথেলে ঘুর্ণি ঝড় আমপানে লন্ড ভন্ড করে দিয়েছে ঘরবাড়ী

স্বপন কুমার রায় খুলনা ব্যুরো প্রধান
মংলা বন্দরের পশুর নদীর পশ্চিম পাড়ে খুলনার দাকোপের বানিশন্তা ব্রোথেলের যৌন কর্মিরা ভালো নেই । ১৯৫৪ সালে মংলা বন্দরের বিদেশী নাবিকদের ঘিরে গড়ে ওঠে বানিশান্তা পতিতাপল্লী। এক সময়ে ভরা যৌবন ছিল বানিশান্তা যৌনপল্লীর। অর্থকষ্ট তাদের এখন নিত্যসঙ্গী।
প্রতি নিয়ত পশুর নদীর আছড়ে পড়া ঢেউয়ের সঙ্গে মিলিয়ে যাচ্ছে তাদের স্বপ্নটুকু। সমাজে ঠাঁই নেই, তাই পেটের দায়ে যৌনপল্লীতে পড়ে আছে যৌন কর্মীরা, খদ্দের নেই, রয়েছে দাদা-মাসি আর প্রকৃতির নিষ্ঠুর আচরণ। এত সব কিছু সহ্য করার পরেও আবার সাইক্লোন আমপানে কেড়ে নিলো তাদের থাকার জায়গাটুকু। কথা হয় বানিশান্তা যৌনপল্লীর সভানেত্রী রাজিয়া বেগমের সাথে, তিনি বলেন আমাদের এ পল্লীতে মোট ৯২ পরিবার ও ৩৭টি বাড়ি, আমাদের উপর যেন মরার উপর খাড়ার ঘা, করোনা ভাইরাসের কারনে এমনিতেই কোন লোকজন নাই, তারপর আবার অমপানে কেড়ে নিল তাদের খুপরি ঘরবাড়ি। আমরা কোন রকম জীবনে বেচে গেলেও রক্ষা হয়নি আমাদের ঘর বাড়ি মালামাল গুলো, চুলা জ্বালানোর মত পরিস্থিতিও নাই। এখনো কেউ আমাদের কোন রকম সাহায্য করেনি, শুধু দেখেই গেছেন, আর এই ওয়ার্ডের মেম্বর ফিরোজ ভাই খিচুরি দিয়ে গেছিল কালকে, তাই খেয়ে একবেলা খিদা মেটাইছি। কথা হয় বানিশান্তা ইউনিয়নের সমাজ সেবক বিনয় কৃষ্ণ সরদারের সাথে, তিনি বলেন বানিশান্তার রেখামারি টু আমতলার রাস্তাঘাট, বসতভিটা, মৎস্য ঘের, যৌনপল্লী সহ বানিশান্তার নদীর পার্শ্বে এবং রাস্তার ভিতরে যারা বসবাস করে তাদের অনেক ক্ষতি হয়েছে, মাননীয় মহিলা এমপি, মাননীয় হুইপ, জেলা প্রশাসক ও মাননীয় প্রধান মন্ত্রী মমতাময়ী মায়ের দৃষ্টি আকর্ষন করছি এই অবহেলিত বানিশান্তার বাশির জন্য। মুঠো ফোনে কথা হয় বানিশান্তা ইউপি প্যানেল চেয়ারম্যান ফিরোজ আলী খা এর সাথে, তিনি বলেন বানিশান্তার রেখামারি টু আমতলার নদীর পার্শ্বে যারা বসবাস করে তাদের সর্বশ্ব কেড়ে নিছে আম্ফান ঝড়ে, আগুন জ্বালিয়ে রান্না করার মত তাদের পরিস্থিতি নাই , তারা বর্তমানে খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে। আমি গত দিন ইউপি চেয়ারম্যানের নিদের্শে আমার তত্বাবধানে ৩৫০ প্যাকেট খিচুরি ব্রথেল ও অসহায় মানুষকে দিয়েছি। আমি সমাজের বৃত্তবান সহ সকলকে এই অবহেলিত মানুষের পার্শ্বে দাড়ানোর জন্য সবিনয় আহব্বান জানাই। ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে মুঠোফোনে বারবার যোগাযোগের করেও সংযোগ পাওয়া যায়নি।

Print Friendly, PDF & Email
error: Content is protected !!