চাঁপাইনবাবগঞ্জে প্রতিবশী কর্তৃক হয়রানীর অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

Zarif Zarif

Hossaun

প্রকাশিত: ২:৪০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০২০

জারিফ হোসেন স্টাফ রিপোর্টার

প্রতিবেশী কর্তৃক মিথ্যা মামলা, বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ ও মিথ্যা তথ্যের ভিত্তিতে সংবাদ প্রকাশের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের এক ভুক্তভোগী। মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০ টায় জেলা শহরের বিশ্বরোড মোড়স্থ মডেল প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন করেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার কালীতলা দ্বিতীয় গলির ভুক্তভোগী আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম বুলু।

সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী আলহাজ্ব আমিনুল ইসলামের ছেলে মো. আফিজুল ইসলাম লিখিত বক্তব্যে বলেন, প্রায় ২৭ বছর ধরে নবাবগঞ্জ মৌজাধীন ১৪০৭ ও ১৪০৮ দাগের নিজ নামীয় অংশ দখলে নিয়ে বসবাস করে আসছেন। প্রতিবেশী সাবিনা ইয়াসমিনের পিতা মৃত আতাউর রহমানের নিকট ক্রয়কৃত সম্পত্তি দখলপ্রাপ্ত হয়ে তিনি পৌরসভার হোল্ডিং চালু করেছেন বলে জানান।

আফিজুল ইসলাম জানান, বসবাসের সুবিধার্থে মৃত আতাউর রহমানের মেয়ে সাবিনা ইয়াসমিনকে বন্টনের কথা বললে সাবিনা রাজি হননি। বাধ্য হয়ে তিনি আদালতে বাটোয়ারা মামলা করেন। মামলার প্রেক্ষিতে আদালত নিযুক্ত ব্যক্তিগণ ২০১৪ সালের ৯ সেপ্টেম্বর দখলীয় অংশ বুঝিয়ে দেন এবং চুড়ান্ত ডিক্রী প্রাপ্ত হন। ডিক্রীর উপর প্রতিপক্ষ আপিল করলে সেখানেও ডিক্রী বহাল রাখেন বিজ্ঞ আদালত। এরপর আদালতের রায় বিপক্ষ যাবার পর থেকে প্রতিপক্ষ প্রতিবেশী সাবিনা ইয়াসমিন ও তার স্বামী সাদিকুল ইসলাম রবি পৌরসভার মেয়র, জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবর আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। সংশ।লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কাগজ-পত্র পর্যালোচনা করে তাদের অভিযোগের কোন সত্যতা পাননি।

ভুক্তোভোগী আমিনুল ইসলাম বলেন, আদালতের রায় গোপন করে সাবিনা ইয়াসমিনের স্বামী মেসার্স রবি ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী মো. সাদিকুল ইসলাম রবি সাংবাদিকদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভিন্ন সময় সংবাদ প্রকাশ করে আমাকে হয়রানি করছে। তিনি জানান, বর্ণিত সম্পত্তির উপর একাধিক মামলা রয়েছে। চলমান মামলা থাকা সত্বেও মেসার্স রবি ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী সাদিকুল ইসলাম রবি মামলা-হামলার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। সংবাদে নক্সা অনুমোদন ছাড়া আমি বাড়ী করছি মর্মে যা বলছে, তাহা সত্য নয়। আমি বিগত ১৫ সেপ্টেম্বর ও ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে নির্মাণ ফিসহ নক্সা অনুমোদন ফি রশিদের মাধ্যমে পৌরসভায় জমাদন করা হয়েছে। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে তা অনুমোদন দেননি পৌরসভা কর্তৃপক্ষ। তবে কর্তৃপক্ষের মৌখিক অনুমোদন পেয়ে বাড়ী নির্মান শুরু করলে নির্মাণ কাজ বন্ধের নির্দেশ দিলে আমি অদ্যাবধি কাজ বন্ধ রেখেছি।

পৌরসভার মেয়র মোহম্মদ নজরুল ইসলাম উভয় পক্ষের বিরাজমান সমস্যা সমাধানের লক্ষে একাধিকবার উদ্যোগ গ্রহণ করেও প্রতিপক্ষ উপস্থিত না হয়ায় তা ভেস্তে যায় বলে জানান আমিনুল। তিনি বলেন, প্রতিপক্ষ সাবিনা ইয়াসমিন ও তার স্বামী সাদিকুল ইসলাম রবির এসকল চক্রান্তের হাত হতে মুক্তি পেতে আমি আপনাদের স্মরণাপন্ন হয়েছি। আপনাদের সুষ্ঠ তদন্তপুর্বক সংবাদ প্রকাশ করে আমাকে প্রতিপক্ষের রোষানল হতে মুক্তি দিতে পারে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, ভুক্তভোগী আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম বুলুর নির্মানাধীন বাড়ির ঠিকাদার আবু বাক্কার সিদ্দিক, অপর প্রতিবশী সানোয়ার আলী, কুদরত আলী, মডেল প্রেসক্লাবের সভাপতি আখতারুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক জারিফ হোসেন,জমশেদ আল, সাংবাদিক সাখাওয়াত জামিল দোলন, রবিউল টুটুলসহ জেলায় কর্মরত বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।

Smiley face