ভূমিদস্যু আলী হাসানের বিরুদ্ধে বগুড়ার তিনমাথা রেলগেটে বিশাল মানব বন্ধন

Subro Subro

Dev

প্রকাশিত: ৯:৩৩ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার:বগুড়া শহরের পুরান বগুড়ার ভূমিদস্যু আলী হাসান জাল দলিল করে জমি দখল, আদালতের আইন অমান্য করে নানান স্থাপনা সহ বিভিন্ন অপকর্মের বিরুদ্ধে ফুঁলে ফেপে উঠেছে ভুক্তভোগী মহল সহ নির্যাতিত এলাকাবাসীরা। (১৬ অক্টোবর) রোজঃ শুক্রবার বেলা ১১টায় তার বিচারের দাবিতে বগুড়া শহরের তিনমাথা রেলগেট এলাকায় ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের পাশে ভুক্তভোগিগন ও নির্যাতিত এলাকাবাসীরা বিশাল মানববন্ধন করেছে।

এই মানব বন্ধন জনস্রোতে রুপ নেয়।
মানবন্ধনে, ভূমি দস্যু আলী হাসানের দ্বারা যে সকল মানুষ নির্যাতিত ও নানাভাবে হেনস্থার শিকার হয়েছেন এবং নিজ ভূমি হারিয়েছেন, সে সব ভুক্তভোগিগন অংশগ্রহণ করেন।

মানববন্ধন কর্মসুচিতে বক্তব্য রাখেন ভুক্তভোগীগন, উল্লেখ্য বগুড়া সদরের শিকারপুরের বাসিন্দা মতিয়ার রহমান মন্টু, খান্দার মালগ্রামের বাসিন্দা নুরুল ইসলাম ওরফে নুরু কামার, ভুক্তভুগি মোমিনুল ইসলাম, আতিয়ার রমান মন্টু এবং ১৫নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক।

এসময় বক্তারা বলেন, আলী হাসান আদালতের নির্দেশ অমান্য করে দখল করছে জমি, রাতারাতি অদৃশ্য পেশী শক্তির বলে নির্মাণ করছে ভবন সহ নানান স্থাপনা। জমির দলিল জাল করে নিজের ইচ্ছেমতো দখল করছে অসহায় মানুষের ভূমি।

রাতারাতি ট্রাক হেলপার থেকে বনে গেছেন শত কোটি টাকার মালিক। গড়ে তুলেছে বাড়ী, গাড়ী, তেলের পাম্প (আলী হাসান ফিলিং স্টেশন), পুরান বগুড়ায় দখল করে নিয়েছে কয়েক একর জমি, কিনেছেন ট্রাক, ট্যাংক লরি সহ অনেক কিছু। গড়ে তুলেছেন, ভূমিদস্যু বাহিনী সহ ব্যক্তিগত বাহিনী, নাম ভাঙ্গছে বিভিন্ন প্রশাসনিক কর্মকর্তার। তার অত্যচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে এলাকাবাসী।

তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে গেলেই,
শুনতে হয় নানান ধরনের মামলা-হামলার হুমকি ধামকি সহ প্রাননাশের হুমকি। এমনকি আলী হাসান পুলিশি হয়রানির হুমকি ধামকি প্রদান করে এবং বলে বগুড়া সদর থানার ওসি হুমায়ন কবির আমার ধর্ম ভাই, কিছু বললেই ওসি সাহেবের গরম দেখায়।

আমরা এলাকাবাসী, আলী হাসানের হুমকির ভয়ে মূখ খুলতে পারি না, তার নির্মম অত্যাচারের কাছে আমরা বড় অসহায়। ভূক্তভোগিগন ও নির্যাতিত এলাকাবাসী অতি দ্রুত এই ভূমি দস্যু আলী হাসানের বিরুদ্ধে সঠিক তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জোর দাবি জানান।
না হলে ভবিষ্যতে আরো বৃহৎ আন্দোলন গড়ে তোলার ঘোষণা প্রদান করেন ভুক্তভোগী ও নির্যাতিত এলাকাবাসীরা।

উক্ত মানব বন্ধন কর্মসুচিতে আরো উপস্থিত ছিলেন, পুরান বগুড়ার ভুক্তভোগি রফিকুল ইসলাম, ফরহাদ, সাইফুল ইসলাম, মানিক, সুমন, আতোয়ার, মাসুদ (২), আব্দুল্লাহ, রাসেল, মামুন, মাছুম, মিজান, মোহন, মনির সহ নির্যাতিত পুরান বগুড়া ও আশেপাশের এলাকাবাসী।

উক্ত বিষয়ে বগুড়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ুন কবিরের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি গনমাধ্যমকে জানান, আলী হাসান আমার কোন ধরনের ধর্ম ভাই না। আলী হাসান জবর দখল বা যে কোন অন্যায় করলে তার বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আলী হাসানের বিরুদ্ধে বগুড়া সদর থানায় একাধিক অভিযোগ থাকার প্রশ্ন তুললে এ বিষয়ে কথা বলতে চাননি ওসি হুমায়ুন কবির।

Smiley face