• মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:০২ অপরাহ্ন
শিরোনাম
জাতিসংঘ সদর দপ্তরের উত্তরের লনের বাগানে বৃক্ষরোপণ ও বেঞ্চ উৎসর্গ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শিবগঞ্জে ক্যান্সার-কিডনি ও লিভার সিরোসিস রোগীদের মাঝে চেক বিতরণ সুমি ও রুমির নতুন ঠিকানা শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র সাপাহারে বরেন্দ্র বাতিঘর পাঠাগারের শুভ উদ্বোধন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলাতে কবির নানাচুর নামক কারখানাতে ৩০০০০ হাজার টাকা জরিমানা খুলনার দাকোপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিকের ৬ জন ও দুজন সতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী গলাচিপায় প্রতিবন্ধীদের সাথে যুবলীগ নেতার মতবিনিময় চাকরি ছেড়ে ফল বাগান, ভাগ্যবদল তুষারের চাঁপাইনবাবগঞ্জে চাচাতো ভাইয়ের ধাক্কায় প্রাণ গেল ডিস ব্যবসায়ীর পটুয়াখালীতে ভোক্তা অধিকারের অভিযান : জরিমানা ১২ হাজার টাকা



Reporter Name / ৯২ Time View
Update : বুধবার, ১৪ জুলাই, ২০২১



সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি:

নওগাঁর সাপাহার উপজেলার উমইল কোরবানীর পশুর হাটে অতিরিক্ত খাজনা আদায়ের উঠেছে। সরকার নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অতিরিক্ত খাজনা নেওয়ার ফলে ক্রেতাদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
জানা গেছে, সীমান্তবর্তী এই উপজেলার উমইল বাজারে প্রতি সপ্তাহের মঙ্গলবারে গরুর হাট বসে। গবাদী পশু কেনাবেচার জন্য বড় হাট হওয়ায় এলাকার মানুষের ভরসাস্থল এই হাট। প্রতি মঙ্গলবার এই হাটে পশু কেনা-বেচা চলে। গত পহেলা বৈশাখ ১৮২৮ বাংলা সনে এই পশুর হাটটির ইজারা না হবার ফলে প্রতি সপ্তাহে সরকারী ভাবে খাস আদায় করা হয়। যে অর্থ রাজস্ব খাতে জমা হয়।
সরকারী ভাবে প্রতি গরুর খাজনা ৪শ’ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু হাটে পশু কিনতে আসা ক্রেতারা অভিযোগ করছেন, গরুপ্রতি ৫শ’ টাকা খাজনা নেওয়া হচ্ছে। যা সরকার নির্ধারিত খাজনার থেকে অতিরিক্ত ১শ’ টাকা । এছাড়াও বিক্রেতাদের কাছ থেকে গরুপ্রতি ২০/৩০ টাকা নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করছেন বিক্রেতারা।
মঙ্গলবার দুপুরে (১৩ জুলাই) উমইল হাটে গরু কিনতে আসা নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক ক্রেতা জানান, কোরবানীর গরু কিনেছি ৪৫হাজার টাকায়। খাজনা দিয়েছি ৫শ’ টাকা।
আরেকজন ক্রেতার সাথে কথা হলে তিনি জানান, ২টি গরুর খাজনা নিয়েছে ১হাজার টাকা।
এবিষয়ে হাটের দায়িত্বে থাকা ইউনিয়ন উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তা আলমগীর হোসেনের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি এ বিষয়ে কোন বক্তব্য না দিয়ে সাক্ষাতে কথা বলার জন্য বলেন।
উমইল হাটে অতিরিক্ত খাজনা আদায়ের ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন এর সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন ভূমি অফিসের কর্মকর্তাগন এটার দায়িত্বে আছেন। আমি বিষয়টি জানিনা। তবে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার কথা নয়। বিষয়টি নিয়ে আমি তাদের সাথে কথা বলবো৷




আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category