• শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:০৭ অপরাহ্ন



তানোরে সরকারি এক কলেজ শিক্ষককে অধ্যক্ষের শোকজ!রাজশাহী বিভাগীয় প্রধান সোহানুল হক পারভেজ

Reporter Name / ৭৪ Time View
Update : শুক্রবার, ৭ জানুয়ারী, ২০২২



: রাজশাহীর তানোরে ‘সরকারি আবদুল করিম সরকার ডিগ্রি কলেজ’ এর এক শিক্ষককে নিজ কলেজ অধ্যক্ষ কারণ দর্শানো শোকজ নোটিশ দিয়েছেন। ওই শোকজ নোটিশের জবাব ৫ কার্য দিবসের মধ্যে দিতে বলা হয়েছে। সম্প্রতি (২ জানুয়ারী) রোববার সকালে অত্র কলেজের পিয়নের মাধ্যমে ওই শিক্ষকের কাছে শোকজ নোটিশ পৌঁছানো হয়। ফলে আজ (৬ জানুয়ারী) বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে শোকজ নোটিশের জবাব দিয়েছেন বলে কলেজ শিক্ষক এপ্রতিবেদককে জানিয়েছেন। কিন্তু জবাবে কি বলা হয়েছে তা জানা জায়নি।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, তানোর উপজেলা প্রশাসকের (ইউএনও) বিরুদ্ধে বিরুপ মানহানী ও চাঁদাবাজির আপত্তিকর মন্তব্য করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্টার্টাস দেবার দায়ে তানোর ‘সরকারি আবদুল করিম সরকার ডিগ্রি কলেজ’ এর রাস্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক রাকিবুল সরকার পাপুলকে কারণ দর্শানো শোকজ নোটিশ দেয়া হয়েছে। তাঁর বাড়ি তানোর পৌর সদরের আমশো মথুরাপুর মহল্লার ৬ নম্বর ওয়ার্ডে। তিনি তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।
রাকিবুল সরকার নামে ফেসবুক আইডি ঘেঁটে জানা গেছে, স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপনের দোহাই দিয়ে উপজেলা প্রশাসনের নেতৃত্বে এক নজিরবিহীন চাঁদাবাজির নাটক দেখল তানোরের খেয়ে খাওয়া সাধারণ মানুষ। যা তারা বাবদাদার আমলে কখনো দেখেনি। সুবর্ণ জয়ন্তী যেমন তেমন জনগণের রক্ত ঘাম ঝরানো টাকায় তেনারা কোর্ট বিলাসিতা আর রাজকীয় খানা পিনায় পেটপুজা ভালই করেছেন তা সহজেই বোধগম্য। চাঁদাবাজির টাকাই কর্তা ব্যক্তিদের আয়োজন ষোল আনা হলেও বিজয় দিবসের সকালে ছোট ছোট কোমলমতি শিশুদের জন্য কোন নাস্তার ব্যবস্থা ছিল না। যা তানোরের সাধারণ মানুষকে লজ্জিত মর্মাহত ও দুঃখিত করেছে। এ নির্লজ্জ বেহায়া প্রশাসনের কর্তাকে সাধারণ মানুষের কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত।
গণচাঁদাবাজির টাকায় বিজয় দিবসে ইউএনও’র গণনাটক এমন মানহানিকর বিরুপ মন্তব্য করে সম্প্রতি ১৪ ডিসেম্বর ফেসবুকে ইউএনও’র বিরুদ্ধে স্ট্যার্স্টাস দেয় সারোয়ার নামের ফেসবুক আইডি থেকে। তবে, বেশ কয়েক দিন পরে সারোয়ার ইউএনও’র বিরুদ্ধে ওই স্ট্যার্স্টাস তার আইডি থেকে ডিলিট করে দেয়। কিন্তু সারোয়ারের ওই আইডির কমেন্টে কলেক শিক্ষক রাকিবুল সরকার ইউএনও’র বিরুদ্ধে এসব কথা বলেন। পরে গত ২ জানুয়ারী রোববার সকালে অত্র কলেজের পিয়নের মাধ্যমে শিক্ষক রাকিবুল সরকারের কাছে কারণ দর্শানো শোকজ নোটিশ দেন অধ্যক্ষ হাবিবুর রহমান শেলী।
এনিয়ে রাকিবুল সরকার পাপুল বলেন, বিজয় দিবস নিয়ে ইউএনও’র বিরদ্ধে তার ফেসবুক স্টার্টাসে কমেন্ট ও লাইক দিয়ে মানুষ প্রমান করেছে। আর কলেজ অধ্যক্ষের শোকজের জবাব দেয়ার বৃহস্পতিবার শেষ দিন। তাই প্রিন্সিপারের সম্মান রক্ষার্থে শোকজের জবাব দেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।
এবিষয়ে তানোর সরকারি আবদুল করিম সরকার ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ হাবিবুর রহমান শেলী বলেন, ফেসবুকে ইউএনও স্যারের বিরুদ্ধে স্ট্যার্স্টাস দেবার দায়ে শিক্ষক রাকিবুল সরকার পাপুলকে ৫ কার্য দিবসের মধ্যে শোকজ নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে। জবাব পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে, ইউএনও মহোদয় অত্র কলেজের সভাপতি নয়, তিনি অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলর হিসেবে আর্থিক লেনদেনে তাঁর এবং আমার যৌথ স্বাক্ষরে কলেজের আর্থিক লেনদেন হয় বলে জানান অধ্যক্ষ।
এব্যাপারে তানোর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও কলেজের অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলর (সভাপতি) পঙ্কজ চন্দ্র দেবনাথ সকালের সময়কে বলেন, বিষয়টি অবগত হয়ে অধ্যক্ষকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে জানান ইউএনও।




আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category