নাচোলে এসেডো’র মুক্তি প্রজেক্টের মাল্টি স্টেকহোল্ডারদের নিয়ে দিনব্যাপী কর্মশালা

Dollar Dollar

Khan

প্রকাশিত: ৪:৫৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২২, ২০২০

অলিউল হক ডলার,নাচোল

চাঁপা্ইনবাবগঞ্জের নাচোলে এসেডোর মুক্তি প্রকল্পের উদ্যোগে মাল্টি স্টেকহোল্ডার ফোরাম,অন্যান্য স্টেকহোল্ডার ও ভূমির মালিকদের নিয়ে দিন ব্যাপী কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১০টায় উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জান্নাতুন নাঈম মুন্নির সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রেখে কর্মশালার উদ্বোধন করেন নাচোল উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাবিহা সুলতানা। বিশেষ অতিথি ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) খাদিজা বেগম, নাচোল থানার অফিসার ইনচার্জ সেলিম রেজা, নাচোল প্রাণী সম্পাদ হাসপাতালের চিকিৎসক ডাঃ সারমিন সুলতানা, উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা আল গালিব,উপজেলা সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার দুলাল উদ্দিন খাঁন,সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন,সহকারী যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম, এসডোর নির্বাহী পরিচালক রবিউল আলম, ফাইন্যান্স ম্যানেজার আজাহার আলী। উন্মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহন করেন আদিবাসী নেত্রী সাবেক ইউপি সদস্য সোনামনি কুজুর, আদিবাসী নেতা বিধান সিং, উপজেলা ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি যতীন হেমরম, সাধারণ সম্পাদক বাবু লাল টপ্পো, নাচোল ইউপি সদস্য আব্দুল গাফ্ফার, নাচোল প্রেসক্লাবের সভাপতি অলিউল হক ডলার, সাংবাদিক একেএম জিলানী, হিরামনি, সনোকা, এসেডোর ফিল্ড অফিসার আমিনুল ইসলাম, সারমিন খাতুন ,ডেইজি খাতুন প্রমূখ। কর্মশালায় বরেন্দ্র অঞ্চলে জমি ব্যবস্থাপনা, জমির মালিক ও শ্রমিককের সম্পর্ক ,মজুরী বৈষম্য, শ্রমবাজার, কৃষির উৎপাদন, শিক্ষা, কারিগরি প্রশিক্ষণ ও উপকরন বিতরণ ,মৎস্য চাষ ,যুব উন্নয়ন থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহনসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোপাত করা হয়। এসেডোর নির্বাহী পরিচালক জানান,২০১৯ সালের ১ জানুয়ারী থেকে মুক্তি প্রকল্পের মাধ্যমে তানোর ও নাচোল উপজেলার ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সক্ষমতা বৃদ্ধি ও জীবনমান উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। স্যানিটেশন, বাল্যবিয়ে, যৌতুক, মাদক ও পারিবারিক নির্যাতন প্রতিরোধ বিয়ে দলীয়সভায় প্রতিমাসে আলোচনা করা হয়। ইতিমধ্যে মোবাইল সার্ভিসিং, রাজমিস্ত্রী, টাইলসফিডিং, সেলাই, সেলুন, ইলেকট্রিক্যাল ওয়ারিং, নকশী কাঁথা, ব্লক বুটিক বিষয়ে নাচোল উপজেলায় ৬৮৭জন ওতানোর উপজেলায় ৫১২জনকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে এবং নাচোল উপজেলায় ৬১৭জন ও তানোর উপজেলার ৪৬৮জনকে উপকরণ প্রদান করা হয়েছে।