• শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৭:০৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
নাচোল সমাজসেবা অফিসের কর্মী শামীমের লাশ দাফন সম্পন্ন মডেল প্রেসক্লাব পাবনা’র পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হল উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌর মেয়র, জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিএনপির আহবায়ক কমিটি থেকে তৃর্ণমূলের ৬১ জন নেতাকর্মীর পদত্যাগ সাপাহারে ছিনতাইকৃত মোটরসাইকেল উদ্ধার : আটক-২ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি শিবগঞ্জ থানার চৌধুরী জোবায়ের, এসপির দিকনির্দেশনা মানিকগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র গ্রেফতার, প্রতিবাদে বিক্ষোভ নাচোলে সমাজসেবা অফিসের ইউনিয়ন সমাজসেবা কর্মী শামীম রেজার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার। বাগমারা’য় মধুমাসে বাজারে দেখা মিলেছে, রসালো লিচু ও তালশাঁস বাগমারা’য় মধুমাসে বাজারে দেখা মিলেছে, রসালো লিচু ও তালশাঁস বড়লেখায় ২৩ মোটরসাইকেল আরোহীর জরিমানা

কন্যা সন্তান হওয়ায় হাসপাতালে ফেলে পালিয়েছে বাবা-মা

Reporter Name / ৮৮ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

মোঃরফিকুল ইসলাম মিঠু/ রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কন্যা সন্তান জন্ম নিয়েছে বলে এই কনকনে শীতের রাতে এক দিনের শিশুকে ফেলে পালিয়েছে নিষ্ঠুর বাবা-মা। গেলো বুধবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে।
কন্যা হয়ে জন্ম নেওয়াই ছিল শিশুটির অপরাধ। এ কারণে প্রচণ্ড শীতের রাতের অন্ধকারে শিশুটি হাসপাতালে ফেলে পালিয়ে যায় তার নিষ্ঠুর মা-বাবা। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শিশুটির বাবার নাম প্রদীপ বিশ্বাস। তার বাড়ি দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার পলাশবাড়ী ইউনিয়নের ধোবাকল গ্রামে।
পরে বুধবার মধ্য রাতে শিশুটিকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিচ্ছন্নতাকর্মী জোবেদা বেগমের কাছে দেওয়া হয়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে শিশুটিকে দত্তক নিতে অনেক নিঃসন্তান দম্পত্তি প্রতিযোগিতায় নেমেছেন।
স্বজন, এলাকাবাসী ও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, ধোবাকল গ্রামের নিরাপদ বিশ্বাসের ছেলে প্রদীপ বিশ্বাস তার গর্ভবতী স্ত্রী পল্লবীকে নিয়ে বুধবার বদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেন। ওই দিন পল্লবীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে স্বাভাবিকভাবে পল্লবী একটি ফুটফুটে সন্তান জন্ম দেন। যখন তারা জানতে পারেন সন্তানটি ছেলে নয়, মেয়ে হয়েছে।
এতে পাষণ্ড মা-বাবার মাথায় চিন্তার ভাজ পড়ে। আনন্দের পরিবর্তে নেমে আসে বিষাদ। ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন শিশুটির বাবা প্রদীপ বিশ্বাস। আগে তাদের ঘরে নয় বছর বয়সী পপি রানী ও পাঁচ বছর বয়সী দীপা নামে আরও দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে। এবারে তাদের আশা ছিল ঘর আলো করে ছেলে সন্তানের জন্ম দেবে পল্লবী। কিন্তু কন্যা সন্তান জন্ম হওয়ায় হতাশায় ভেঙে পড়েন তারা।
তিন কন্যা সন্তান নিয়ে কী করবে এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে শুরু হয় উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা। একপর্যায়ে বাকবিতণ্ডা শুরু করেন তারা। বিষয়টি জানতে পারেন হাসপাতালের পরিচ্ছন্নতাকর্মী জোবেদা বেগম। একপর্যায়ে কনকনে ঠাণ্ডায় রাতের কোনও এক সময় ছাড়পত্র না নিয়ে পল্লবী সন্তানটিকে হাসপাতালের বিছানায় ফেলে পালিয়ে যান। পরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিচ্ছন্নতাকর্মী জোবেদা বেগম শিশুটিকে নিয়ে যান । ঘটনাটি জানাজানি হলে শিশুটিকে সন্তান দত্তক নেওয়ার জন্য কাড়াকাড়ি শুরু হয়। ভিড় বাড়ে হাসপাতাল চত্বরের ভেতরে জোবেদার বাড়িতে।
জেবি


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category