জনসংখ্যা বাড়লে ও খাদ্য নিরাপত্তার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা সম্ভব হবে: কৃষিমন্ত্রী

প্রকাশিত: ৪:৫৪ অপরাহ্ণ, মে ৬, ২০২১

জনসংখ্যা বাড়লে ও খাদ্য নিরাপত্তার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা সম্ভব হবে: কৃষিমন্ত্রী
এম শাহাদাত হোসেন,
গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি :

কৃষিমন্ত্রী ডঃ মোঃ আব্দুর রাজ্জাক এমপি বলেছেন, দেশে খাদ্য নিরাপত্তায় অনেকগুলো চ্যালেঞ্জ রয়েছে । প্রতি বছর অসংখ্য জনসংখ্যা বাড়ছে, অন্যদিকে নানা কারণে চাষযোগ্য জমির পরিমাণ কমছে । রয়েছে জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবও । এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় ইতিমধ্যে অনেক নতুন জাত ও চাষাবাদের প্রযুক্তি উদ্ভাবিত হয়েছে। ফলে,‌ ক্রোমোজোম সংখ্যা বাড়লেও খাদ্য নিরাপত্তার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা সম্ভব হচ্ছে।
অন্যদিকে কৃষকদের দাবি , আমাদের ধান কাটার মেশিন দিতে হবে । ট্রান্সমিটার পুড়ে যায় । সে ক্ষেত্রে ব্যবস্থা নিতে হবে, যেন আমাদের ট্রান্সমিটার পড়ে যাওয়ার বিল না দিতে হয়। খাল বিল নদী নালা খননে ব্যবস্থা করতে হবে। জাতে করে কৃষি আবাদে সেচের যেন অসুবিধা না হয় ।
কৃষিমন্ত্রী ডঃ মোঃ আবদুর রাজ্জাক বলেন আমি গোমস্তাপুর উপজেলার রহনপুরে ধান কাটার মেশিন দিব । নদী-নালা খননের ব্যবস্থা করে দেব ট্রান্সমিটারের পুড়ে যাওয়ার বিষয়ে ব্যবস্থা করে দেব।
তিনি কৃষকদের সকল দাবি গ্রহণ করায় কৃষকরা খুশি হয়েছে।

তিনি বলেন আজকে মাঠে ব্রি 81 জাতের ধান কাটা হচ্ছে এর ফলন অনেক ভালো বিঘা প্রতি 25 থেকে 31 মন । এটি জনপ্রিয় 28 জাতের মত ব্রি 28 দীর্ঘদিন ধরে চাষ হচ্ছে কিন্তু উৎপাদন কমে যাচ্ছে। সেই জন্য এই নতুন ব্রি 81 জাতটি কৃষক পর্যায়ে দ্রুত সম্প্রসারণ এর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

চাষিরাও এটি চাষে ব্যাপক আগ্রহ দেখাচ্ছেন অচিরেই ব্রি ধান 81 জনপ্রিয়তায় ব্রি ধান 28 এর মত হবে । উচ্চ ফলনশীল জাত চাষের মাধ্যমে ধান উৎপাদন উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বাড়বে এবং দেশের খাদ্য নিরাপত্তায় এটি আশানুরূপ ভূমিকা রাখবে।

কৃষি মন্ত্রী আজ বৃহস্পতিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলা ব্রি 81 জাতের ধান কর্তন ও কৃষক সমাবেশ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তৃতায়। এ কথা বলেন বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট ব্রি ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
মন্ত্রী আরো বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান কৃষকবান্ধব সরকার পিসিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে যুগোপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে।

সরকার অত্যন্ত উদারভাবে কৃষকদেরকে বিভিন্ন প্রণোদনা ও গবেষণার অর্থ বরাদ্দ দিয়ে যাচ্ছে আধুনিক গবেষণাগার তৈরি, প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি প্রধান ও বাজেট বৃদ্ধির মাধ্যমে গবেষণার ওপর গুরুত্ব প্রদান অব্যাহত থাকবে । যাতে করে ভবিষ্যতের সকল চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধি ও খাদ্য নিরাপত্তা বজায় রাখা সম্ভব হয়।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ মনজুরুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্থানীয় সংসদ সদস্যবৃন্দ , কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কমলারঞ্জন দাস, বিএডিসির চেয়ারম্যান ডঃ অমিতাভ , সরকার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ আসাদুল্লাহ, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সাবেক ডিজি হামিদুর রহমান, বিএআরসির নির্বাহী চেয়ারম্যান ডঃ শেখ মোঃ বখতিয়ার ব্রির ইসলাম , পুলিশ সুপার এএইচএম আব্দুর রকিব, কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর চাঁপাইনবাবগঞ্জের উপপরিচালক মোঃ নজরুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

ব্রি’র মতে ব্রি ধান 81 ব্রি ধান 28 জাতের পরিপূরক কিন্তু এটি ব্রি ধান 28 এর চেয়ে চিকন। ঝড়-বৃষ্টিতে ব্রি 28 হেলে পড়লেও নতুন ব্রি ধান 81 হেলে পড়ে না। এ জাতের ধানের বৈশিষ্ট্য হলো ধান পাকার পড়ো পাতাগুলো সবুজ থাকে । মাঝারি উঁচু জমি থেকে উঁচু জমিতে খুব ভালো ফলন দেয় নওগাঁ ,রাজশাহী ,নাটোর, সাতক্ষীরা ,খুলনা, যশোর, চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদহ অঞ্চলে এই ধানের ফলন অনেক ভালো পাওয়া যায়। প্রতি হেক্টরে গড় ফলন 6.5 থেকে 7 মেট্রিকটন ।
রান্না করার পর এটি বাসন্তীর মতো দেড়গুণ লম্বা হয়ে যায়। এই চালে এমাইলোজ বেশি যার পরিমাণ 25 শতাংশের ওপরে। ভাত জরজরে ও খেতে সুস্বাদু ধান থেকে তৈরি আতপ চাল বিদেশে রপ্তানী যোগ্য । এতে প্রোটিন থেকে থাকে 10.3% যা ব্রি ধান 28 এ থাকে মাত্র 8 শতাংশ ।

Print Friendly, PDF & Email