বংশালে পুলিশের সহায়তায় দুই বছরের শিশু রাশিদাকে ফিরে পেল অসহায় মা

প্রকাশিত: ৬:১৬ অপরাহ্ণ, মে ২, ২০২১

বংশালে পুলিশের সহায়তায় দুই বছরের শিশু রাশিদাকে ফিরে পেল অসহায় মা

মোঃরফিকুল ইসলাম মিঠু|| রাজধানীর বংশাল থানা এলাকায় হারিয়ে যাওয়া দুই বছরের শিশু রাশিদা আক্তারকে (২) উদ্ধার করে অসহায় মায়ের কাছে ফিরিয়ে দিল ঢকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) বংশাল থানা পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছে অপহরণের সাথে জড়িত নীলা বেগমকে।

বংশাল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শাহীন ফকির-বিপিএম জানান, মোহাম্মদপুরের জনৈকা সুমা রাস্তায় ভাঙারি জিনিস ও কাগজ কুড়িয়ে জীবিকা নির্বাহ করতো। গত ২৫ এপ্রিল, ২০২১ বেলা ১১.৩০টার দিকে দুই বছরের সন্তান রাশিদাকে নিয়ে বাসা থেকে বেরিয়ে কাগজ ও ভাঙ্গারী কুড়ানোর জন্য বংশালে যান তিনি। বিকেল ৪.৩০টার দিকে পুরাতন বংশাল রোডের মাথায় মেয়েকে বসিয়ে রেখে কাগজ সংগ্রহ করছিলেন সুমা। কিছুক্ষণ পরে দেখতে পান তার মেয়ে আর সেখানে নেই। মেয়েকে আশে পাশে খোঁজাখুজি করে না পেয়ে বংশাল থানায় একটি নিখোঁজ জিডি করেন। ওই জিডির পরিপ্রেক্ষিতে শিশু রাশিদাকে খুঁজে পেতে চার সদস্যের টিম গঠন করে ডিএমপির লালবাগ বিভাগ। তদন্তে ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে দুজনকে শনাক্ত করা হয়। বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত বিশ্লেষণ করে শনিবার (১ মে, ২০২১) রাত ৮.৩০টায় কেরানীগঞ্জ মডেল থানার কদমতলী শহিদনগর এলাকার গ্রেফতারকৃত নীলা বেগমের ভাড়াটিয়া বাসা হতে ভিকটিমকে মারধরের কারনে চেহারা বিকৃত ও অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। এসময় অপহরণকারী নীলা বেগমকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি বলেন, গ্রেফতারকৃত নীলা বেগম ও অপর একজন পরস্পরের যোগসাজশে শিশুটিকে চকলেট খাইয়ে কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে যায়। ভিক্ষাবৃত্তির উদ্দেশ্যে ভিকটিম রাশিদা আক্তারকে অপহরনের পর মারধর করে চেহারা বিকৃত করা হয়। ভিকটিমের শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় পুলিশের সহায়তায় তাকে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে।

এসংক্রান্তে ভিকটিমের মা মোসাঃ সুমা বেগমের অভিযোগের ভিত্তিতে বংশাল থানায় মামলা রুজু হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email