জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে শ্রেষ্ঠ এসিল্যান্ড হিসেবে পদক পেলেন মো. জুবায়ের হোসেন

প্রকাশিত: ৮:০৬ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৫, ২০২০

মোঃ রুবেল মিয়া, স্টাফ রিপোর্টারঃ

টাঙ্গাইল জেলার ১২টি উপজেলার মধ্যে জেলার সর্বশ্রেষ্ঠ এসিল্যান্ড হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন মির্জাপুর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মির্জা মো. জুবায়ের হোসেন। জেলার রাজস্ব প্রশাসনের কার্যক্রমের কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের জন্য স্বীকৃতি হিসেবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে তাকে টাঙ্গাইল জেলার শ্রেষ্ঠ এসিল্যান্ড নির্বাচিত করা হয়েছে বলে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মো. জুবায়ের হোসেন এই সু-সংবাদটি জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার সকালে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে মো. জুবায়ের হোসেন কে শ্রেষ্ঠ এসিল্যান্ড পদক তুলে দেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রধান অতিথি মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব ফরহাদ হোসেন, বিশেষ অতিথি শেখ ইউসুফ হারুন (সচিব) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, জনাব মো. মোকাম্মেল হোসেন (অতিরিক্ত সচিব) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, জমাব মো. মোস্তাফিজুর রহমান পিএ.এ বিভাগীয় কমিশনার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ঢাকা। সে সময় অন্যান্য জেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মহোদয়গণ উপস্থিত ছিলেন।

জনাব মো. জুবায়ের হোসেন ৩৫ তম ব্যাচের বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের একজন কর্মকর্তা। তার বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার ফুলবাড়িয়া উপজেলায়। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিষয়ে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন।

এদিকে টাঙ্গাইল জেলার শ্রেষ্ঠ এসিল্যান্ড নির্বাচিত হওয়ায় তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি একাব্বর হোসেন এমপি, মির্জাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টু ও মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুল মালেক। মির্জাপুর পৌরসভার মেয়র সালমা আক্তার শিমুল, মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার সভাপতি মাজহারুল ইসলাম শিপলু অভিনন্দন জানান।

উল্লেখ্য যোগ্য হল, ৩৫ তম ব্যাচের বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের এই কর্মকর্তা গত ১৯ ফেব্রুয়ারি মির্জাপুরের এসিল্যান্ড হিসেবে যোগ দেন। যোগদানের পর থেকে তিনি নিজ দপ্তরে স্বচ্ছতার সঙ্গে ভূমি সেবা দেয়ার পাশাপাশি বাল্যবিয়ে বন্ধ করা, করোনাকালে মানুষকে সচেতন করা, সরকারি সম্পত্তি রক্ষা, নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন এবং অবৈধ ড্রেজার ও পাইপ ধ্বংস করা, বাজারে পণ্যের দাম উর্ধগতির জন্য ও ভেজাল পণ্যর জন্য মোবাইল কোর্ট গঠন করে জরিমানা করা, বনের ভেতর গড়ে উঠা কয়লা তৈরির চুল্লি ভেঙে দেয়াসহ একের পর এক কাজ করে মির্জাপুরের সর্বস্তরের মানুষের কাছে প্রশংসিত হয়েছেন মির্জা জুবায়ের হোসেন।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল জেলার মির্জাপুর উপজেলার শ্রেষ্ঠ সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. জুবায়ের হোসেন বলেন, সরকারি স্বার্থ রক্ষা করা হচ্ছে আমাদের লক্ষ। দেশের জনগনের কাছে সরকারি ডিজিটাল ভূমি সেবা পৌছিয়ে দেয়ার লক্ষ্যেই হচ্ছে একমাত্র করণ। জেলায় শ্রেষ্ঠ হওয়ায় দায়িত্ব আরো বেড়ে গেল। সামনের দিনগুলোতে আরো ভাল কাজ করার জন্য চেষ্টা করে যাব এজন্য আপনাদের সকলের কাছে সহোযোগিতা চাই।