• শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৫:৪১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
নাচোল সমাজসেবা অফিসের কর্মী শামীমের লাশ দাফন সম্পন্ন মডেল প্রেসক্লাব পাবনা’র পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হল উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌর মেয়র, জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিএনপির আহবায়ক কমিটি থেকে তৃর্ণমূলের ৬১ জন নেতাকর্মীর পদত্যাগ সাপাহারে ছিনতাইকৃত মোটরসাইকেল উদ্ধার : আটক-২ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি শিবগঞ্জ থানার চৌধুরী জোবায়ের, এসপির দিকনির্দেশনা মানিকগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র গ্রেফতার, প্রতিবাদে বিক্ষোভ নাচোলে সমাজসেবা অফিসের ইউনিয়ন সমাজসেবা কর্মী শামীম রেজার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার। বাগমারা’য় মধুমাসে বাজারে দেখা মিলেছে, রসালো লিচু ও তালশাঁস বাগমারা’য় মধুমাসে বাজারে দেখা মিলেছে, রসালো লিচু ও তালশাঁস বড়লেখায় ২৩ মোটরসাইকেল আরোহীর জরিমানা

যশোরের শার্শায় পৈত্রিক ভিটা দখলের চেষ্টা: অভিযোগ করেছেন সহিদুল গং

Reporter Name / ৯৮ Time View
Update : বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০

মোঃসেলিম রেজা তাজ,ব্যুরো চীফ: যশোরের শার্শার উলাশী ইউনিয়নের গিলাপোল গ্রামে পৈত্রিক ভিটা থেকে উচ্ছেদের চেষ্টা ও দখলের অভিযোগ করেছেন গিলাপোল গ্রামের মৃত কেসমত আলীর ২য় পুত্র মোঃ সহিদুল ইসলাম গং।

পৈত্রিক ভিটা জমির দখলদার মোঃ সহিদুল ইসলাম স্থানীয় সংবাদ কর্মীদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, তার এই জমি থেকে উচ্ছেদের পায়তারা করছেন একই গ্রামের মৃত গফুর গাজীর পুত্র আঃ জলিল।

তিনি বলেন , যশোর জেলার শার্শা থানার অন্তর্গত ৮ড় গিলাপোল মৌজায় এস এ দাগ ৩৮৯,৩৯০,৩৯১ এর মোট ৫৩ শতক বাস্ত ভিটা ও ডাঙ্গা জমির মধ্যে ৪১ পুন্য ১/২ শতক জমি আমার পিতা কেসমত আলীর মৃত্যুর পর আমি সহিদুল ইসলাম গং ভোগ দখল করে আসছি।

অভিযোগকারী শহিদুল ইসলাম আরও বলেন এস এ দাগ নং ৩৯০,৩৯১ এর কিছু জমি আমার পিতা কেসমত আলী একই গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল জলিল এর নিকট বিক্রি করেন। কিন্তু এস এ দাগ নং ৩৮৯ এর জমি আমার বাবা কোন ব্যাক্তির নিকট বিক্রি করেন নাই।

বিভিন্ন সময় আমার পৈতৃক ভিটা থেকে আমার পরিবারকে উচ্ছেদ করতে গেলে একই গ্রামের বিবাদী জলিলের বিরুদ্ধে আমি বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত যশোর এর মোকদ্দমাঃ ফৌঃকাঃআইনের ১৪৪ ধারায় মামলা করি। যার মামলা নং-পি-৫১/২০।

তিনি আরও বলেন আঃ জলিলের ভগ্নিপতি নাসির বিভিন্ন সময়ে জমি থেকে উচ্ছেদের আমার ও পরিবারের উপর ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদান করছেন।

জমির প্রকৃত দাবিদার সহিদুল আরো জানান, বিবাদীর ওই জমির কোনো কাগজপত্র না থাকা সত্ত্বেও তারা সম্পূর্ণ প্রভাব খাটিয়ে তার পৈত্রিক জমি থেকে উচ্ছেদের চেষ্টা করে যাচ্ছে। তিনি সংবাদকর্মীদের মাধ্যমে তার দখলে থাকা পৈত্রিক ভিটার বিষয়ে সুষ্ঠ সমাধানের আবেদন জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে মামলার বিবাদী আব্দুল জলিল জমি থেকে উচ্ছেদের অভিযোগ অস্বীকার করেছে। তিনি বলেন শহিদুলের পিতা কেসমত আলীর নিকট থেকে ওই জমি আমি ক্রয় করেছি।তিনি আরও বলেন আদালত যে সিদ্ধান্ত দিবেন তিনি তা মেনে নিবেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category