আজ মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৬:১১ পূর্বাহ্ন

সাধারণ ক্ষমা পেলেন মালয়েশিয়ায় থাকা ২৯ হাজার অবৈধ বাংলাদেশি

চলমান মালয়েশিয়ায় সাধারণ ক্ষমার আওতায় ২৯ হাজার অবৈধ বাংলাদেশি সুবিধা পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন দেশটির ইমিগ্রেশন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক খাইরুল। কুয়ালালামপুরে মালয়েশিয়া অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক খাইরুলের সঙ্গে দেশটিতে বাংলাদেশের হাইকমিশনার শহীদুল ইসলামের বৈঠক হয়। ঘণ্টাব্যাপী চলা বৈঠকে অবৈধ বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়।

এ সময় বিভিন্ন ক্যাম্পে আটক বাংলাদেশি কর্মীরা যাতে দ্রুত মুক্ত হতে পারেন, সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে মালয়েশিয়ার প্রতি আহ্বান জানান বাংলাদেশের হাইকমিশনার।

এ সময় আলোচনাকালে হাইকমিশনের কাউন্সেলর মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম, কাউন্সেলর (শ্রম ২) মো. হেদায়েতুল ইসলাম মন্ডল, প্রথম সচিব (পলিটিক্যাল) জনাব রুহুল আমিন এবং মালয়েশিয়া ইমিগ্রেশনের পলিসি এবং স্ট্র্যাটেজি পরিচালক মোহাম্মদ জুহাইরি মাত রাডি, পাসপোর্ট বিভাগ, ইমিগ্রেশন ডিটেনশন ডিপার্টমেন্ট, অপারেসি ও ইনগেস্টিগেশন এবং ফরেন এফেয়ার্স বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ব্যাক ফর গুড কর্মসূচি ঘোষণার পূর্বে দেশে ফিরে যেতে ইচ্ছুক অভিবাসীদেরকে জেল, জরিমানা ও বিভিন্ন ধরণের আইনানুগ শাস্তির সম্মুখীন হতে হতো যা ছিল অত্যন্ত কষ্টকর। মালয়েশিয়া সরকারের ব্যাক ফর গুড কর্মসূচির আওতায় সাধারণ ক্ষমার সুযোগ পেয়ে দেশে ফিরে যেতে ইচ্ছুক অবৈধ অভিবাসীরা দারুনভাবে উচ্ছ্বসিত এবং তাঁদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া পরিলক্ষিত হচ্ছে।

এদিকে মান্যবর হাইকমিশনার শহীদুল ইসলাম মালয়েশিয়া সরকারের ব্যাক ফর গুড কর্মসূচির আওতায় অবৈধ অভিবাসীদের সাধারণ ক্ষমায় দেশে ফেরার সুযোগ দেয়ায় ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, দেশে ফিরে যেতে ইচ্ছুক প্রবাসীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে একই দিন (দিনে দিনেই) হাইকমিশন থেকে ট্রাভেল ডকুমেন্ট ইস্যু করা হয় এবং ব্যাক ফর গুড কর্মসূচি সুচারুভাবে সম্পন্ন করার জন্য হাইকমিশনের ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি টিম নিরলসভাবে কাজ করছে।

এদিকে হাইকমিশনারের অনুরোধের প্রেক্ষিতে মালয়েশিয়া ইমিগ্রেশন বুথের কার্যক্রম সাধারণ কর্মদিবসে সকাল ৮ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত এবং সাপ্তাহিক ছুটির দিনে পুত্রজায়া, কুয়ালালামপুর, সেরেমবান, শাহ আলম এবং জহুর বারু ইমিগ্রেশনে সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত সেবা প্রদান করার সিদ্ধান্তের কথা নিশ্চিত করেন।

তাছাড়া হাইকমিশনার শহীদুল ইসলাম বিভিন্ন কারণে ডিটেনশন সেন্টারে আটক অভিবাসী বাংলাদেশি কর্মী যাতে দ্রুত আইনী প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে মুক্ত হতে পারেন সে বিষয়ে ইমিগ্রেশনের মহাপরিচালককে অনুরোধ করেন। মহাপরিচালক দাতো খায়রুল দাজাইমি এ বিষয়ের উপর গুরুত্বারোপ করেন এবং যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছে।

error: Content is protected !!